এসইও অপ্টিমাইজারের পক্ষ থেকে আমি মোঃ ইমদাদুল হক, সকল মুসলিম ভাইদের আন্তরিক সালাম আসসালামু আলাইকুম। অমুসলিম ভাইদের প্রতি আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি, আমাদের এসইও এর প্রথম পর্ব। আজকের এই প্রথম পর্বে আমরা জানবো সার্চ ইঞ্জিন কি ? এবং এসইও এর খুঁটিনাটি বিষয়গুলো নিয়ে আজকে আলোচনা করব। যাতে করে নতুনদের জন্য এসইও কি এবং কিভাবে কাজ করে সেটি সম্পূর্ণ ক্লিয়ার হয়।

এসইও কি?

এসইও কথাটির শব্দগত অর্থ হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন সংক্ষেপে SEO। এখান থেকে আমরা মোটামুটি আইডিয়া করতে পারি ।

এখানে একটি সার্চ ইঞ্জিন আছে এবং এর পাশাপাশি সার্চ ইঞ্জিনের সাথে অপটিমাইজেশন রিলেটেড কিছু হবে হয়তো এসইও।

আমরা আরও একটু দেখি এসইও সম্পর্কে।

গুগোল সহ বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিন যেমন বিং, ইয়াহু, ইত্যাদি সার্চ ইঞ্জিনের সাথে আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগের যে লেনদেন সেটাই এক কথায় সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন।

এই কথাটি থেকে আমরা সহজেই বুঝতে পারি যে, অনলাইনে থাকা বিভিন্ন ব্লগ, বিভিন্ন প্রোডাক্ট, বিভিন্ন সেবা বা সার্ভিস ইত্যাদি সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিষয় সম্পর্কিত মূলত যে কাজ সেটাই হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের কাজ।

ব্যাপারটি আরেকটু ক্লিয়ার হওয়ার জন্য আমরা একটি সার্চ ইঞ্জিন এ যাই, আচ্ছা আমরা প্রথমে গুগোল এর কথাই বলি।

কারণ, গুগল হচ্ছে অত্যন্ত সুপরিচিত যা আমি আপনিসহ পৃথিবীতে প্রায় 90 শতাংশ মানুষ এটাকে চেনে।

যারা নেট ব্রাউজ করেন তারা সবাই মূলত google.com নাম শুনেছেন বা একবার হলেও গুগোল এ গিয়ে কোনো না কোনো কিছু লিখে সার্চ করেছেন।

সার্চ ইঞ্জিন সম্পর্কে ধারণা

তো যাই হোক আমরা www.google.com এ প্রবেশ করছি । এবং এখানে লিখে সার্চ করছি বেস্ট মোবাইল ইন বাংলাদেশ এই কথাটা লিখে সার্চ করার সাথে সাথে দেখেন গুগোল এখানে অনেকগুলো রেজাল্ট আমাদের সামনে ওপেন করলো।

এখানে তাদের সর্বপ্রথমেই mobiledokan.com ওয়েবসাইটটি শো করতেছে। এবং তার একটু নিচে অর্থাৎ তিন নম্বর পজিশনে mobiledor.com ওয়েবসাইটটি শো করতেছে।

এভাবে গুগলের সার্চ রেজাল্ট গুলো নিচে নিচে প্রতি পেজে দশটি করে রেজাল্ট শো করতেছে এবং এখানে দেখুন গুগোল মাত্র 0.77 সেকেন্ডে 344,000,000 এতগুলো রেজাল্ট শো করাচ্ছে।

What is seo

What is SEO

যাই হোক আমাদের মূল কথা হলো এই যে mobiledokan.com এবং mobiledor.com এই দুটো সাইট যে গুগলের টপ পজিশনে আছে।

তার মানে কি তারা গুগলকে কোন টাকা দিয়েছে যে, তাদের ওয়েবসাইটটা যেন গুগোল সবার প্রথমে দেখায়?? আরেকটি বিষয় লক্ষ্য করুন।

এখানে দুইটা সাইটই কিন্তু বাংলাদেশ ওয়েবসাইট। আর গুগোল হচ্ছে আমেরিকান প্রতিষ্ঠান। কিন্তু আমেরিকান প্রতিষ্ঠান হওয়া সত্বেও বাংলাদেশের একটা লোকাল মোবাইলের দোকান যেটা গুগলের টপ ranking  এ অবস্থান করছে?

কিন্তু বিষয়টা মোটেও এমন না। গুগোল এ যারা কাজ করেন বা গুগোল এ যারা ডেভেলপার তারা কিন্তু এই দুইটা ওয়েবসাইটকে হয়তো চেনেও না।

অথচ তাদের ওয়েবসাইটে যখন আমরা বাংলাদেশ থেকে টপ বাংলাদেশ মোবাইলফোন লিখে সার্চ করলাম তখন কিন্তু তারা আমাদের দেশের ওয়েবসাইট কেই দেখালো।

এটাই হচ্ছে মূলত গুগোল এর বিশেষত্ব বা সার্চ ইঞ্জিনের কাজ এবং এটাকেই মূলত আমরা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বলতে পারি।

তো এই যে সুনির্দিষ্ট সাজানো-গোছানো কাজগুলো করলে আপনার ওয়েবসাইটের তথ্য সহজে অন্য কেউ সার্চ দিলে খুঁজে পাওয়া যায়, এই কাজগুলোই মূলত করা হয় এসইও অপটিমাইজেশন এর মাধ্যমে।

আশাকরি এসইও অপটিমাইজেশন সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা পেলেন, এসইও অপটিমাইজেশন কি এবং এটি কিভাবে কাজ করে?

বিষয়টি আরেকটু ক্লিয়ার হওয়ার জন্য এখানে আমরা national university result লিখে সার্চ করলাম। এবং এখানে দেখুন সর্বপ্রথমেই ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির রেজাল্ট পেজ আমাদের সামনে চলে আসলো।

এখন এখান থেকে আমরা ইচ্ছা করলে ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি রেজাল্ট বের করে দেখতে পারি।

National university result

National university result

তো বুঝতে পারছেন আমি কোন বিষয় না জানলেও সার্চ ইঞ্জিনে সেই বিষয়টা লিখে যদি সার্চ করি, তাহলে কিন্তু খুব সহজেই আমাদের সেই তথ্যকে গুগোল আমাদের সামনে উপস্থাপন করবে।

আশা করি বিষয়টা ক্লিয়ার বুঝতে পেরেছেন।

সার্চ ইঞ্জিন কি?

সার্চ ইঞ্জিন আসলে কি? চলুন আমরা সার্চ ইঞ্জিনগুলো কি কি সে সম্বন্ধে একটু জেনে আসি।

আমরা তো এতক্ষণ সার্চ ইঞ্জিন নিয়ে অনেক কথাই বললাম তাই না? কিন্তু সার্চ ইঞ্জিন আসলে কি সেটা কি আমরা আসলে বুঝতে পারি?

আমরা যদি সার্চ ইঞ্জিনসমূহ না বুঝে থাকি, তাহলে চলুন SERPs সম্পর্কে একটু ধারনা নিয়ে আসি।

সার্চ ইঞ্জিন হল মূলত একটি মেশিন যার মাধ্যমে আপনি অনলাইনে থাকা যাবতীয় তথ্যের মধ্যে থেকে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য এক নিমিষেই খুঁজে বের করতে পারবেন।

এক নিমিষে বললাম কেন কারণ হচ্ছে যে, আপনি এক সেকেন্ডের কয়েক গুণ কম সময়ের মধ্যে এই সমস্ত সার্চ ইঞ্জিন আপনার সামনে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্যের ব্যাপারে যা লিখে সার্চ করেছেন সেই তথ্য খুঁজে বের করে দিতে সক্ষম।

এই যে আমরা এখানে national university result লিখে সার্চ করলাম । এবং গুগোল কিন্তু তার কাছে থাকা তথ্য থেকে সারা ইন্টারনেট ঘুরে, আমাদের জন্য শুধুমাত্র ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি রেজাল্ট যে পেজটা, সেটা কিন্তু সর্বপ্রথমে উপস্থাপন করেছে।

এসইও এর মূল কাজ হলো আমরা যখন আমাদের প্রয়োজনীয় কোনো কিছু লিখে সার্চ করব, তখন সে সারা ইন্টারনেট ঘুরে আমার প্রয়োজনীয় তথ্য আমার সামনে সে উপস্থাপন করবে।

যেমন এখানে দেখুন আমরা যখন ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি রেজাল্ট লিখে সার্চ করলাম। তখন সে কিন্তু আমাদের জন্য পুরো ইন্টারনেট ঘুরে 3,200,000,000 গুলোর রেজাল্ট উপস্থাপন করেছে।

তাও আবার দেখুন মাত্র 0.49 seconds এর মধ্যে।

এটি হলো মূলত google এর বিশেষত্ব এবং এর জন্যই মূলত আমরা এসইও করব।

যেন আমাদের তথ্যগুলো google খুব সহজেই মানুষের সামনে উপস্থাপন করে যা লিখে তারা সার্চ করেছে।

সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে আমরা কেবলমাত্র গুগলকে জেনে থাকি। কিন্তু গুগলের পাশাপাশি এখানে অনেকগুলো সার্চ ইঞ্জিন আছে। যেমনঃ

এছাড়া পৃথিবীতে আরও প্রায় লক্ষাধিক সার্চ ইঞ্জিন রয়েছে যা আমরা হয়তো অনেককেই চিনি না যেগুলো সম্পর্কে আমাদের কোন প্রকার ধারণা নেই।

এখন বাংলাদেশে একটা সার্চ ইঞ্জিন আছে বলুনতো সেইটার নাম কি??

বাংলাদেশের সার্চ ইঞ্জিনের নাম হল pepeelika.com যার মাধ্যমে বাংলাদেশের গভমেন্ট এর যত প্রকার তথ্য আছে সেখান থেকে খুঁজে পাওয়া সম্ভব। এরকম পৃথিবীতে প্রায় প্রতিটি দেশেই আছে।

তবে আমরা যেহেতু গুগোল কে ব্যবহার করে অভ্যস্ত এবং পৃথিবীতে প্রায় 95% শেয়ার আছে গুগলের তাই আমরা মূলত গুগলকে নিয়ে বেশি কথা বলে থাকি।

এসইও কীভাবে কাজ করে?

গুগল এবং বিংয়ের মতো অনুসন্ধান ইঞ্জিনগুলি ওয়েব পৃষ্ঠাগুলি ক্রল করতে বট বা স্পাইডার ব্যবহার করে, এক সাইট থেকে অন্য সাইটে গিয়ে পৃষ্ঠাগুলি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে এবং একটি সূচীতে রাখে।

এরপরে, অ্যালগরিদমগুলি সূচীতে পৃষ্ঠাগুলি বিশ্লেষণ করে শত শত Ranking factor বা Ranking signal বিবেচনা করে।

পৃষ্ঠাগুলি প্রদত্ত কোনও প্রশ্নের জন্য অনুসন্ধানের ফলাফলগুলিতে প্রদর্শিত হবে।

ব্যবহারকারীর অভিজ্ঞতার দিকগুলির জন্য অনুসন্ধান Ranking এর কারণগুলি প্রক্সি হিসাবে বিবেচনা করা যেতে পারে।

আমাদের এসইও উপাদানগুলির পর্যায় সারণী ছয়টি প্রধান বিভাগে উপাদানগুলি সংগঠিত করে এবং এসইওর সামগ্রিক গুরুত্বের ভিত্তিতে প্রতিটি ভাগ করে।

উদাহরণস্বরূপ, সামগ্রীর গুণমান এবং কীওয়ার্ড গবেষণা বিষয়বস্তু অপ্টিমাইজেশনের মূল কারণ এবং ক্রল্যাবিলিটি এবং মোবাইল-ফ্রেন্ডলি গুরুত্বপূর্ণ সাইট Ranking এর কারণ।

অনুসন্ধানের অ্যালগরিদমগুলি প্রাসঙ্গিক, প্রামাণিক পৃষ্ঠাগুলি এবং ব্যবহারকারীদের একটি দক্ষ অনুসন্ধানের অভিজ্ঞতা সরবরাহ করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে।

এই বিষয়গুলি বিবেচনায় রেখে আপনার সাইট এবং কন্টেন্টকে অপ্টিমাইজ করা অনুসন্ধানের ফলাফলগুলিতে আপনার পৃষ্ঠাগুলিকে উচ্চতর স্থান দিতে সহায়তা করতে পারে।

শেষ কথা

তো এই ছিল মূলত আজকের পর্ব। আশা করি সবাই একটু হলেও ধারণা পেয়েছেন

এসইও কি? এবং সার্চ ইঞ্জিন কি? এসইও কিভাবে কাজ করে? ইত্যাদি।

যারা নতুন আছেন তাদের হয়ত বুঝতে একটু সমস্যা হতে পারে। এটা কোন ব্যাপার না আমরা পরবর্তীতে এসইওর প্রতিটি ধাপে ধাপে দেখব। আশা করি এই বিষয় গুলো দেখার পর আপনার এসইও নিয়ে কোন সমস্যা থাকবে না।

তারপরো যদি কোন সমস্যা থেকে থাকে তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটে Tell me your opinion এই ঠিকানায় গিয়ে আমাদেরকে প্রশ্ন করতে পারেন।

আমরা খুব দ্রুত আপনার সেই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। তো সবাই ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন, আগামী পর্বে দেখা হবে। তো সেই পর্বের আমন্ত্রণ জানিয়ে আজকে এখানেই বিদায় নিচ্ছি আল্লাহ হাফেজ।