আসসালামু আলাইকুম আমি মোঃ ইমদাদুল হক সবাইকে স্বাগত জানিয়ে শুরু করছি এসইও বাংলা টিউটোরিয়াল এর আজকের পর্ব। আজকের পর্বে আমরা মূলত আলোচনা করব হোয়াইট হ্যাট বনাম ব্ল্যাক হ্যাট এসইও নিয়ে।

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর কাজ শুরু করার পূর্বে আমাদের কে সর্বপ্রথম যে বিষয়টার উপরে ধারণা রাখতে হবে সেটা হল এসইওর প্রয়োগ। এসইওকে আমার ওয়েবসাইটের জন্য কিভাবে প্রয়োগ করতে চাচ্ছি।

আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের জন্য মূলত দুই ভাবে এসইওর কাজ করতে পারি একটি হল সঠিক পদ্ধতিতে এবং অন্যটি হল ব্ল্যাক হ্যাট পদ্ধতিতে।

এখন আপনি এত প্রশ্ন করবেন হোয়াইট হ্যাট এসইও কি বা ব্ল্যাক হ্যাট এসইও কি কেনইবা হোয়াইট এন্ড ব্ল্যাক হ্যাট এসইও আমরা করব বা আমাদের জন্য কোন ধরনের এসইও বেস্ট হবে। আমাদের সাইটের জন্য কোন ধরনের এসইও করব।

বিষয়টি ক্লিয়ার বোঝার জন্য আমাদেরকে হোয়াইট হ্যাট এবং ব্লাক হ্যাট এসইও সম্পর্কে পূর্ণ ধারণা নিয়ে কাজ করতে হবে।


প্রথমে আমরা কথা বলবো হোয়াইট হ্যাট এসইও নিয়ে:


হোয়াইট হ্যাট এসইও বলতে আমরা বুঝি এসইওর সেই সকল পদ্ধতি বা প্রয়োগকে বুঝে থাকি যেগুলো খুব গুগলের বা যেকোনো সার্চ ইঞ্জিনের সকল প্রকার নিয়মকানুন সঠিকভাবে মেনে তাদের অ্যালগরিদমের আপডেট অনুযায়ী আপনার ওয়েবসাইটকে অপটিমাইজ কণার মাধ্যমে গুগলের ব্যাংকিংয়ে আসাটাই হলো মূলত হোয়াইট হ্যাট এসইও।


ব্যাপারটি কিছু দে আমরা আরো সহজে বলি তাহলে বলতে হয় যে পদ্ধতিতে সার্চ ইঞ্জিনের সব গাইডলাইন অনুসরণ করা হয়। এবং এটার মূল ফোকাস হচ্ছে ইউজারের ওপর।


এখন চলুন একটু ব্ল্যাক হ্যাট এসইও নিয়ে কথা বলি:


ব্ল্যাক হ্যাট এসইও বলতে সেই সমস্ত সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনকে বোঝায় যা গুগোল বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনের নিয়মকানুন না মেনে অর্থাৎ নিয়ম ভঙ্গ করে স্পামিং এর মাধ্যমে গুগলের টপ পজিশনে আসার কৌশল গুলি হল মূলত ব্ল্যাক হ্যাট এসইও।

আপনি যেহেতু নতুন আপনার মনে প্রশ্ন থাকতে পারে যে ভাই স্পামিং কি? স্পামিং নিয়ে আমি পরবর্তীতে একটা পূর্ণাঙ্গ পোস্ট করব যেটার মাধ্যমে আপনি স্পামিং সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা পাবেন।

যাই হোক কথা বলছিলাম ব্ল্যাক হ্যাট এসইও নিয়ে। আমরা যদি আরো সহজে ব্ল্যাক হ্যাট এসইও সম্পর্কে বলতে চাই তাহলে সেটা হলো মূলত গুগোল বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনকে বোকা বানিয়ে তাদের টপ পজিশনে রেংকিং করার একটা পদ্ধতি।

আপনি হয়তো গুগল বা অন্য কোন সার্চ ইউনিয়ন কে বোকা বানিয়ে ক্ষণিক সময়ের জন্য গুগলের র্যাংকিংয়ে আসলেও সার্চ ইঞ্জিন কিন্তু সেই সাইটটিকে পেনাল্টি বা এন্ডিং করে দিতে পারে। ব্ল্যাক হ্যাট এসইও তে মূলত সার্চ ইঞ্জিনের কোন গাইডলাইন অনুসরণ করা হয় না।

পেনাল্টি পাওয়া কোন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইনে কোন ব্যবসা আপনি সফল হতে পারবেন না সার্চ ইঞ্জিনের পেনাল্টি পাওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে প্রফেশনাল এসইও অপটিমাইজার সিলেট করতে ভুল করা অথবা এসইও এজেন্সি বাছাই করতে ভুল করা ও সার্চ ইঞ্জিন এর গাইডলাইন অনুসরণ না করা।

সার্চ ইঞ্জিনগুলো এশিয়াতে সফল হওয়ার জন্য বা যেন এতে স্পামিং না হয় সেজন্য তাদের অ্যালগরিদমে বিভিন্ন প্রকার গাইডলাইন শেয়ার করে থাকে।

আপনি যেন সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনে সফল হতে পারেন সেজন্য গুগল বা অন্য যে কোন সার্চ ইঞ্জিন আপনাকে সহযোগীতা করে থাকে।
এখন আপনার মনে প্রশ্ন থাকতে পারে বাই গুগোল আবার কিভাবে আমাদেরকে সহযোগিতা করবে।

এই প্রশ্নটা থেকে থাকে তাহলে আমি বলব হ্যাঁ গুগল আপনাকে অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটকে র্যাঙ্কিংয়ের জন্য সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করে থাকে।

যদি গুগলের আপডেট গুলো পড়েন তাহলে আপনি আপনার সকল প্রকার সার্চ ইঞ্জিন গাইড লাইন পেয়ে যাবেন। গুগল আপডেট করা মানেই হল আপনাকে তারা গাইডলাইন দিচ্ছে যে আপনার ওয়েবসাইটে কিভাবে কাজ করলে গুগলের টপ পজিশনে আসতে পারবেন।

এবং গুগলের এই আপডেট বা গাইডলাইন গুলো ফলো করলে আপনি খুব সহজেই 125 আসতে পারবেন এর পাশাপাশি সার্চ ইঞ্জিন কমিউনিটি, ডিজিটাল মার্কেটিং কনফারেন্স যেমন আনবাউন্ড, এমএন সার্চ, সার্চ লাভ, এবং মজ এর নিজস্ব মজকোন যেখানে নিয়মিত ও সার্চ ইঞ্জিন এক্সপার্টরা সার্চ ইঞ্জিনের গতি প্রকৃতি নিয়ে আলোচনা করে থাকে।


এছাড়া রয়েছে গুগল ওয়েবমাস্টার সেন্ট্রাল হেলথ ফোরাম এবং লাইভ অফিস হাওয়ার হ্যাংআউট। যদিও বিং তাদের ওয়েব মাস্টার ফোরাম 2014 সালে বন্ধ করে দিয়েছে।

শেষ কথা


উপরে আমরা ব্লাকহাট এবং হোয়াইট হাট দুইটা এস পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করলাম। তবে সার্চ ইঞ্জিনের সাথে কখনো প্রতারণা না করে ইউজার ফ্রেন্ডলি ওয়েবসাইট দিয়ে আপনি অনলাইনে ইউজারদের একটি ভালো এক্সপেরিয়েন্স দিতে পারেন। অনলাইনে ভালো করতে হলে আপনাকে সার্চ ইঞ্জিন গাইডলাইনের পাশাপাশি ইউজার ফ্রেন্ডলি কনটেন্ট দিতে হবে।

যাই হোক অনেক আলোচনা করলাম আশাকরি বুঝতে পেরেছেন এখন সিদ্ধান্ত আপনার আপনি কোন পথে এ যাবেন। তবে লংটাইম পরিকল্পনা যদি আপনার থাকে তাহলে অবশ্যই আপনাকে হোয়াইট হ্যাট এসইও টাই বেছে নিতে হবে। দেখা হবে পরবর্তী কোন পর্বে আজকে আমি এখানেই বিদায় নিচ্ছি। সবাইকে আগামী পর্বের স্বাগত জানিয়ে আজকের পর্ব এখানেই বিদায় নিচ্ছি ভালো থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।